২৪ বছর বয়সে হত্যা মামলার আসামী ; ৫৪ বছরে গ্রেপ্তার!


নাটোর প্রতিনিধি:
২৪ বছর বষয়ী যুবক স্ত্রীর কারণে প্রকাশ্যে
খুন করেন ৩২ বছর বয়সী প্রতিবেশী এক ব্যাবসায়ীকে। ওই মামলায় ৩ বছর পর তার যাবজ্জীবন কারাদন্ড হলে স্বস্ত্রীক আত্মগোপনে যান ওই হত্যাকারী। অবশেষে ওই হত্যাকান্ডের প্রায় ৩০ বছর পর র্যাবের হাতে গ্রেপ্তার হলেন ৫৪ বছর বয়সী ওই আসামী।
শনিবার সকালে সিরাজগঞ্জ জেলার হাটিকুমড়ুল এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে র্যাব ৫ সদস্যরা।
গ্রেপ্তার শাহজাহান আলী ওরফে সোহরাব হোসেন স্বপন নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলার মাধনগর ইউনিয়নের পশ্চিম সোনাপাতিল গ্রামের হোসেন আলীর ছেলে হলেও আত্মগোপনের পর থেকে তিনি দিনাজপুর জেলার ফুলবাড়ী উপজেলার কাটাবাড়ী এলাকার বাসিন্দা।
রাজশাহী র্যাব ৫ এর উপ অধিনায়ক মেজর হাসান মাহমুদ,এবং নাটোর র্যাব অফিসের কোম্পানী কমান্ডার এএসপি ফরহাদ হোসেন শনিবার দুপুরে বিষয়টি
নিশ্চিত করে জানান,গ্রেপ্তার শাহজাহান ১৯৯২ সালে একই এলাকার ফিরোজাকে বিয়ে করেন। এরপর ওই মেয়েকে কেন্দ্র করে স্থানীয় মাছ,ব্যাবসায়ী ও মাইক সার্ভিস ব্যাবসায়ী শাহাদতের সাথে তার বিরোধ হয়। ওই বিরোধের জেরে একই বছর ১৭ মে স্থানীয় বারনই নদীতে গোসল করতে নেমে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে হাতে থাকা ছুরি উপর্যুপরি বুকে আঘাত করে শাহাদতকে হত্যা করে শাহজাহান। ওই ঘটনায় নিহতের ভাই সেকেন্দার আলী হত্যা মামলা দায়ের করেন। ১৯৯৫ সালে ২৯ মে শুনানী শেষে আসামীকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও ৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ১ বছরের কারাদন্ড ঘোষণা করেন জেলা ও সেশন জজ। এর পর থেকে দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে সোহরাব হোসেন স্বপন নামে দর্জির কাজ করে বসবাসের পাশাপাশি ওই নামে এনআইডিও করেন তিনি। গত ১০ বছর থেকে তিনি গাজীপুরের এক গার্মেন্টস কারখানায় কাজ করছিল। গোপন সংবাদে বিষয়টি জানতে পেরে তাকে গ্রেপ্তার করে র্যাব।

শর্টলিংকঃ