লালপুরের বিলমাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান মিন্টুর উঠান বৈঠকে উপচে পড়া ভিড়


আমজাদ হোসেন , বিলমাড়ীয়া ( লালপুর ) : বিএনপি’র দুর্গ ক্ষেত লালপুরের ৫ নং বিলমাড়ীয়া ইউনিয়নের দুই বারের নির্বাচিত বর্তমান চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিন্টুকে আবারো চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত করতে উঠান বৈঠক দল-মত উপেক্ষা করে সাধারণ মানুষের উপচে পড়া ভিড় চোখে পড়ার মতো।
স্থানীয় ও দলীয় সূত্রে জানা যায়, লালপুর উপজেলার ৫ নং বিলমাড়ীয়া ইউনিয়ন বিএনপি’র দুর্গ হিসেবে পরিচিতি ছিল। ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও লালপুর উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান মিন্টু ২০১১ সালে প্রথম বারের মত বিএনপি’র দুর্গে হানা দিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয় । তরুণ নেতৃত্ব আত্মনিয়োগ করেন মানব সেবাই , দিন যত যায় জনপ্রিয়তা ততই বাড়তে থাকে, দল-মতের উপেক্ষা করে সাধারণ মানুষের দৌড় গোড়ায় সরকারি সেবা পৌঁছে দেন । ফলে ২০১৬ সালের নির্বাচনেও তিনি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন । ২০১৪ সালে লালপুর উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন । কর্মীবান্ধব এ নেতা পুরো উপজেলায় যুবলীগকে সুসংগঠিত , শক্তিশালী সাংগঠনে পরিণত করে তোলে।
আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা পোস্টারিং , লিফলেট ,মোটরসাইকেল শোডাউন ,উঠান বৈঠক ও ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন।
মিজানুর রহমান মিন্টু তার প্রচারণা শুরু করেছে । প্রতিদিনই বিগত ১০ বছরের ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালনের সফলতা তুলে ধরে গণসংযোগ ,উঠান বৈঠক , পায়ে হেঁটে হেঁটে সাধারণ মানুষের কাছে আবারো ভোট ভিক্ষা করছেন। ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডে উঠান বৈঠকের উপচে পড়া ভিড় চোখে পড়ার মতো।
সম্প্রতি বিলমাড়ীয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় মিজানুর রহমান মিন্টু কে একক চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে বাছাই করেছেন বলে দলীয় সূত্রে জানা যায়।
মিজানুর রহমান মিন্টুর পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা শমসের আলী মোল্লা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদের দুই দুইবার ও মা
মমতাজ বেগম ইউপি সদস্য ছিলেন। পারিবারিকভাবেই পিতা-মাতার সমাজসেবা দেখে মানুষের পাশে অসহায়দের সহযোগিতায় এগিয়ে আসা মিন্টু জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছেন বলে দাবি করেন নাগশোষা ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু বক্কর।
৪ নং মহারাজপুর ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ নেতা আনিছুর রহমান বলেন , বর্তমান চেয়ারম্যান গরিব অসহায় দুস্থদের জন্য বরাদ্দকৃত ভিজিডি , ভিজিএফ , বয়স্ক ভাতা , বিধবা ভাতা , প্রতিবন্ধী ভাতা সহ সকল সুবিধা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়েছেন। ৮ নং মোহরকয়া ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের সভাপতি লিয়াকত আলী বলেন , মিন্টুর উঠান বৈঠকে মানুষের যে ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে তা দেখে সহজেই বুঝা যায় আগামী নির্বাচনেও তাকে বিপুল ভোটের মাধ্যমে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করবেন।

শর্টলিংকঃ