বাঘায়  প্রতীক পেয়ে ভোটের মাঠে প্রার্থীরা


স্টাফ রিপোর্টারঃ
আগামী-২৯ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে রাজশাহীর বাঘা পৌরসভা নির্বাচন। এ নির্বাচনে পুর্বোযোষিত তফসিল অনুযায়ী (১১ ডিসেম্বর ) রোববার প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়। নির্বাচনে শেষ পর্যন্ত মেয়র পদে ৫ জন প্রর্থী অংশ নিয়েছেন। প্রার্থীরা নিজ নিজ প্রতীক পেয়ে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন। মেয়র ছাড়া কাউন্সিলর প্রার্থীরা প্রচারনা শুরু করেছেন।
সরেজমিনে দেখা যায়,প্রথম দিনেই পৌর সভার পাড়া-মহল্লায় প্রচার মাইকে সরগরম হয়ে উঠেছে।
তবে পোস্টার সাঁটানোর ক্ষেত্রে মেয়র প্রার্থীদের মধ্যে এগিয়ে আ’লীগ দলীয় প্রার্থী শাহিনুর রহমান পিন্টু। পৌর সদরসহ
গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে-মোড়ে চোখে পড়েছে আ’লীগ দলীয় প্রার্থী শাহিনুর রহমান পিন্টুর নৌকা
প্রতীকের পোস্টার। পোস্টার সাঁটানোসহ কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে ভোটের মাঠে নেমেছেন তিনি। অপর মেয়র প্রার্থী আ’লীগ নেতা ও সাবেক মেয়র আক্কাস আলী পেয়েছেন”জগ”প্রতীক। তিনি দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করে মাঠ চষে বেড়াচ্ছন।আক্কাস আলী বলেন,পোস্টার হাতে পেলেই পোস্টার সাঁটানোর কাজ শুরু করা হবে। এ ছাড়া অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী “নারিকেল গাছ” প্রতীক পেয়ে মাইকে প্রচার-প্রচারনা শুরু করেছেন। তিনি বলেন,প্রতীক বরাদ্দ পেয়েছি। তবে পোস্টার পেতে দেরি হওয়ায় মাইকে প্রচারণা শুরু করা হয়েছে। এদিকে বিরোধী দল বিএনপি দলীয় সিন্ধান্ত মোতাবেক নির্বাচনে অংশ গ্রহন করার নির্দেশ না থাকায় পৌর বিএনপি’র সভাপতি কামাল হোসেন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। তিনি ‘”কম্পিউটার” প্রতীক পেয়েছেন। কমাল হোসেন বলেন,রোববার প্রতীক বরাদ্দ পেয়ে কর্মী- সমর্থকদের নিয়ে আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু করেছি। আরেকজন স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী ইসরাফিল বিশ্বাস”মোবাইল ফোন” প্রতীক পেয়েছেন।
মেয়র পদে ৫ জন ছাড়াও ভোটের মাঠে নেমে রয়েছেন সংরক্ষিত নারি পদে ১৩ জন ও সাধারন কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন প্রার্থী প্রচারনা শুরু করেছেন।
জাহাঙ্গীর মাইক সার্ভিসের স্বত্বাধিকারি জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন,প্রথম দিন ৬ টি মাইক সেট প্রচারণায় ভাড়া দিয়েছি। তবে এর সংখ্যা আরো বাড়বে বলে আশা করেন তিনি। অটোরিকসা চালক আব্দুল কুদ্দুস জানান,দুপুর ২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রচারণায় প্রতিদিন ৪০০ টাকা করে চুক্তি হয়েছে ৯ নং ওয়ার্ডর সোহরাব হোসেনের সাথে।
৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী ইন্জিনিয়ার রেজাউল করিম বলেন,প্রতীক বরাদ্দের পর পোস্টার হাতে না পেয়ে মাইকে প্রচারণার কাজ শুরু করেছি। ছাপাখানার স্বত্বাধিকারী ইকবাল হোসেন বলেন,আগেই সবকিছু প্রস্তুত করে রাখার ফলে
প্রতীক পাওয়ার পরপরই ছাপানোর কাজ শুরু করেছি। তবে কাগজের দাম বৃদ্ধির কারণে পোস্টারের অডার গত বছরের চেয়ে এবার অনেক কম মনে হচ্ছে। এবার এক হাজার পোস্টারের দাম পড়ছে ৩০০০ থেকে ৩৫০০
টাকা। অথচ বিগত বছর এক হাজার পোস্টারের দাম ছিল ২০০০ হাজার টাকার নীচে।
নির্বাচনে রিটার্নিং অফিসার আবুল হোসেন জানান,আচরণবিধি মেনে প্রতিদিন দুপুর ২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মাইকে প্রচার চালাতে পারবেন প্রার্থীরা। তবে কেউ নির্বাচনী আচরণ
বিধি লঙ্ঘন করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আগামী ২৯ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ৮ টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে ভোট গ্রহণ করা হবে। পৌরসভায় এবার মোট ভোটার সংখ্যা ৩১ হাজার ৬৫৯ । এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৫ হাজার ৮১২ ও নারী ভোটার ১৫ হাজার ৮৫৭ জন। ১১ টি কেন্দ্রে (ভোটিং মেশিন) ইভিএমের মাধ্যমে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে।

শর্টলিংকঃ