নাটোর

জীবন বাঁচাতে ১০ দিন থেকে এলাকা ছাড়া কৃষক পরিবার!

 

নাটোর সংবাদদাতা :

নাটোরে পৈত্রিক সম্পত্তিতে মার্কেট করে বসবাস করছিলেন এক কৃষক পরিবার। কিন্তু স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী ব্যাক্তি প্রকাশ্যে ওই মার্কেট দিয়েছে ভেঙ্গে। শুধু তাই নয়,ওই মার্কেট ভাঙ্গার পর ওই পরিবারকে হুমকি-ধমকি দেয়া হয়। এতে

জীবন বাঁচাতে ১০ দিন থেকে এলাকা ছাড়া ওই কৃষক পরিবার! এনিয়ে মামলা করলেও আজও জীবন ভয়ে এলাকায় ফিরতে পারেনি পরিবারটি।

তবে পুলিশ বলছে,বিষয়টি তদন্ত চলছে।

সদর উপজেলার ছোটহরিশপুর এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে।

সুলতান সরদারের মেয়ে ভুক্তভোগী শ্যামলী খাতুন জানান,শিবদূর্গা মৌজায় তার বাবা সুলতান সরদার ৭ দাগে ১ একর ২১ শতক জমি পান পৈত্রিকসূত্রে। নাটোর জেলা যুগ্ম জজ ১ম আদালতে বাটোয়ারা মোকদ্দমার চুড়ান্ত ডিক্রীর আলোকে

তৎকালীন সদর উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা আবু হাসান প্রতিবেদন দাখিল করেন। এরপর ওই মামলার(২/১৬) রায়ের প্রেক্ষিতে পুলিশ ২০১৬ সালে ওই দখল বুঝিয়ে দেন। ওই ৭ দাগের মধ্যে ২০৫ নং দাগে তার বাবা মার্কেট করেন। সেখানে ৯ টি দোকান করা হয়।

শ্যামলী জানান,গত ৯ ফেব্রুয়ারী পাশের অধিবাসী আশরাফ আলীসহ সঙ্গীয় লোকজন তাদের ওই মার্কেট প্রকাশ্যে ভেঙ্গে ফেলে। এসময় তাদের বাধা দিলে তাদেরকেও জখম করা হয়। এবিষয়ে তিনি সদর থানায়,৫ জনের নামসহ অজ্ঞাত আরো ১৫/১৬ জনের বিরুদ্ধে ১৩ লাখ ১৭ হাজার টাকার ক্ষতি ও তাদের মারপিটের অভিযোগে

মামলা দায়ের করলেও আজও আসামীদের হুমকিতে তারা এলাকা ছাড়া। এঘটনায় তিনি অনতিবিলম্বে আসামীদের গ্রেপ্তার,দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও নিজ বাড়িতে নিরাপদে বসবাসের নিশ্চয়তা বিধানে পুলিশ,প্রশাসন ও প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন ।

এবিষয়ে জানতে চাইলে মামলার আইও এসআই আবুল কালাম আজাদ বলেন,মামলার পর কয়েকজন আসামীকে গ্রেপ্তার করা হলেও তারা জামিনে রয়েছে। বিষয়টি তদন্ত চলছে। তদন্তে মার্কেট ভাঙ্গার সত্যতা পাওয়া গেছে। তদন্ত শেষে আদালতে তিনি প্রতিবেদন দাখিল করবেন।

শর্টলিংকঃ