ওরা লাল-সবুজের ফেরিওয়ালা

নলডাঙ্গা(নাটোর)প্রতিনিধিঃ বিজয়ের উল্লাস চারদিকে। মহান বিজয় দিবস উদযাপনে দেশজুড়ে অপেক্ষা। লাল-সবুজের পতাকা উড়বে দেশের আনাচে-কানাচে। বিজয়ের মাস এলেই গ্রাম-শহর-নগরের পথে ঘাটে ফেরিওয়ালারা পতাকা বিক্রি করেন।

দেশের প্রতি ভালোবাসা থেকেই বিজয়ের মাসে পতাকা বিক্রি মৌসুমী পেশা হিসেবে বেছে নেন তারা। চারদিকে লাল-সবুজের ফেরিওয়ালাদের পথচলায় উড়ছে বিজয়ের নিশান।

এই ভ্রাম্যমান পতাকা বিক্রেতারা রাস্তায় ঘুরে ঘুরে বাঁশের সঙ্গে জাতীয় পতাকা বেঁধে বিক্রি করছেন। শুধু পতাকা নয়,লাল-সবুজের মাথার কাগজের ক্যাপ,রাবার,হাতের ব্যাজ,বুকের ব্যাজ বিক্রি করছেন তারা।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান,অফিস আদালত,দোকানপাট ও বাসাবাড়িতে উড়ানো হয় লাল সবুজের জাতীয় পতাকা। বিশেষ করে জাতীয় দিবস গুলোতে পতাকার ব্যবহার কয়েকগুন বেড়ে যায়,ফলে পতাকার কেনাবেচাও বেড়ে যায়। ছোটবড় সকলেই চেষ্টা করেন পতাকা কেনার।

মহান বিজয় দিবসকে সামনে রেখে নাটোরের নলডাঙ্গা হাটে ফেরি করে বিক্রি করা হচ্ছে লাল সবুজের জাতীয় পতাকা। বিজয় দিবস উৎযাপনের লক্ষ্যে ক্রেতারাও কিনছেন লাল সবুজের জাতীয় পাতাকা।

পতাকার ফেরিওয়ালা ফরিদপুর জেলার সদর উপজেলার আবদুল্লাহ সরদারের ছেলে কাউছার আলী (২৪) বলেন,প্রতি বছর ডিসেম্বর মাসের শুরু থেকে ১৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন জেলায় আমরা পতাকা বিক্রি করে বেড়ায়। প্রায় ৫ বছর ধরে আমি এভাবেই ফেরি করে পতাকা বিক্রি করছি।

ফরিদপুর সদর উপজেলার ফরহাদ খানের ছেলে মাহাবুব খাঁন (২১)বলেন,ফেরি করে ফরিদপুর থেকে পতাকা বিক্রী শুরু করে বিভিন্ন এলাকা হয়ে এখন আমরা নাটোরের নলডাঙ্গা হাটে পতাকা বিক্রি করছি। তিনি আরও বলেন, লাল সবুজের পতাকা আমাদের অহংকার। আমি গর্বিত এই ভেবে যে,আমি পতাকার ফেরিওয়ালা। ছবিটি মঙ্গলবার দুপুরে নাটোরের নলডাঙ্গা হাট থেকে তুলেছেন-ফজলে রাব্বী

 

 

শর্টলিংকঃ