আকাশপথে দেশে আসছে করোনা রোগী

মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ থেকে করোনা ‘পজিটিভ’ কয়েকজন প্রবাসী দেশে ফিরেছেন। গত এক মাসে এ রকম সাতজন করোনা ‘পজিটিভ’ প্রবাসী ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে শনাক্ত হন।

কোভিড-১৯ পজিটিভ সনদ থাকার পরও এসব যাত্রীকে ঢাকায় নিয়ে আসে একাধিক বিমান সংস্থা। সাত যাত্রীর মধ্যে চারজন সৌদি এয়ারলাইনসে, দুজন কাতার এয়ারওয়েজে ও একজন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ফ্লাইটে ঢাকায় আসেন।

করোনা ‘পজিটিভ’ সাত যাত্রীর সবাই প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিক। তাঁদের মধ্যে একজন নারী ও ছয়জন পুরুষ।

বিমানবন্দর–সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, করোনার কারণে গত মার্চ থেকে চীন ছাড়া বিশ্বের সব দেশের সঙ্গে যাত্রীবাহী ফ্লাইট চলাচল বন্ধ করে দেয় বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। তবে জুন থেকে সীমিত পরিসরে ফ্লাইট চলাচল শুরু হয়। বর্তমানে সৌদি আরবের সঙ্গে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ থাকলেও সেখান থেকে বাংলাদেশ বিমান ও সৌদি এয়ারলাইনসের বিশেষ ফ্লাইটে করে প্রবাসী বাংলাদেশিরা দেশে ফিরছেন। এ ছাড়া কাতার থেকেও বিশেষ ফ্লাইটে করে দেশে ফিরেছেন অনেকে।

বিমানবন্দর সূত্র জানায়, বাংলাদেশিদের দেশে ফেরার ক্ষেত্রে কোভিড সনদ বাধ্যতামূলক না থাকায় কেউ কেউ সুযোগ নিচ্ছেন। একই কারণে ফ্লাইটে ওঠার আগে বিমান সংস্থাগুলোও বাংলাদেশি যাত্রীদের কোভিড সনদ আছে কি না, তা যাচাই করছে না। আবার অনেক যাত্রীর করোনা ‘পজিটিভ’ সনদ থাকার পরও তাঁরা সেটি ঢাকায় বিমানবন্দরে এসে লুকিয়ে রাখছেন। তবে যাত্রীদের মধ্যে কেউ কেউ কোভিড সনদ বিমানবন্দরের স্বাস্থ্যকেন্দ্রে দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের কাছে দিয়েছেন। এভাবেই গত এক মাসে করোনা পজিটিভ সনদসহ সাতজন যাত্রী শনাক্ত হয়েছেন।

শর্টলিংকঃ